গুগল এডসেন্স থেকে টাকা আয়

গুগল এডসেন্স থেকে টাকা আয় : গুগল এডসেন্স নিয়ে অনেকে অনেক রকম প্রশ্ন করে বিশেষ করে ব্লক বা ইউটিউব থেকে যারা টাকা আয় করছেন তারা এডসেন্স নিয়ে অনেক কিছু জানতে চান।

আজ আমরা এই ছোট্ট একটি আর্টিকেল এ সব প্রশ্নের উত্তর না দিতে পারলেও গুরুত্বপূর্ণ বিষয়গুলো আপনার সামনে তুলে ধরার চেষ্টা করব। আমাদের জানামতে অ্যাডসেন্স থেকে অনেকেই ভালো পরিমাণে টাকা আয় করছে।

বিদেশিদের কথা বাদ দেয়া হলেও এই দেশটাকে অথবা এই উপমহাদেশে এমন অনেক ইউটিউবার আছে এবং ওয়েবসাইটের মালিক আছে যারা প্রতি মাসে কত টাকা ইনকাম করে যাচ্ছে।

আমার পরিচিত অনেক ব্লগার রয়েছে যাদের মধ্যে আমি একজনকে প্রশ্ন করেছিলাম আপনি মাসে কত টাকা গুগল এডসেন্স থেকে ইনকাম করছেন তিনি আমার প্রশ্ন শুনে হেসে বলেছিলেন আরে বেশি ইনকাম নয় শুধুমাত্র প্রতি মাসে একটি বাইক কেনার মত টাকা আসে। তবে চিন্তাই করতে পারছেন তিনি গুগল এডসেন্স থেকে যদি বাইক কেনার মত টাকা প্রতিমাসে পায় তাহলে কম করে হলেও এক থেকে দেড় লক্ষ টাকা কিন্তু ট্রেনে গুগল এডসেন্স থেকে ইনকাম করে নিতে পারেন।

আমাদের দেশে এমন অনেক ধরনের বেকার রয়েছে যারা বেকার না থেকে প্রতিমাসে 50 থেকে 60 হাজার টাকা ইনকাম করতে পারলে তাদের জীবনকে হেসে খেলে কাটাতে পারবে কিন্তু শুধু ব্লগ ইউটিউব চ্যানেল তৈরি করলেই হবেনা এডসেন্স থেকে টাকা ইনকাম করার জন্য এডসেন্স এর কিছু গুরুত্বপূর্ণ নিয়ম রয়েছে সকল নিয়ম যথাযথভাবে পূরণ করতে পারলেই গুগল এডসেন্স থেকে টাকা ইনকাম করা যাবে সে বিষয়ে বিস্তারিত জেনে নেয়া যাক।

গুগল এডসেন্স থেকে টাকা আয়
গুগল এডসেন্স থেকে টাকা আয়

গুগল এডসেন্স কি?

আপনি যদি গুগল এডসেন্স থেকে টাকা ইনকাম করতে চান তাহলে প্রথমে আপনাকে জানতে হবে গুগল এডসেন্স কি? গুগোল একটা সার্ভিস যার মাধ্যমে আমরা আমাদের ইউটিউব চ্যানেলে এবং ওয়েবসাইটগুলোতে বিজ্ঞাপন দেখাতে পারি যেমন আমাদের এই ওয়েবসাইটে যে সকল বিজ্ঞাপন দেখতে পারছেন সেগুলো কিন্তু গুগল এডসেন্স এর বিজ্ঞাপন।

বিজ্ঞাপনগুলো গুগল এডসেন্সের মাধ্যমে প্রদান করা হয় যখন কেউ এ বিজ্ঞাপন গুলোতে ক্লিক করে বিজ্ঞাপনদাতা ওয়েবসাইটে ভিজিট করেন তখন বিজ্ঞাপনদাতা গুগলকে নির্দিষ্ট একটি টাকা দিয়ে থাকে সে টাকা থেকে সামান্য কিছু গুগল রেখে দেয় বাকি যেগুলো থাকে সেগুলো ব্লক ইউটিউব এর মালিকদের প্রদান করে থাকে সুতরাং যত বেশি ক্লিক করবে ওয়েবসাইট এবং ইউটিউব ভিডিও এর মালিকরা গুগল অ্যাডসেন্সের টাকা জমাতে পারবে সর্বোচ্চ 100 টাকা ওয়েবসাইটের এবং ইউটিউব এর মালিক কে তাদের নিজস্ব ব্যাংক একাউন্টের মাধ্যমে টাকা উত্তোলন করতে পারে। ইউটিউব ও ব্লগ থেকে টাকা ইনকাম করার সবচেয়ে বড় মাধ্যম হচ্ছে গুগল এডসেন্স।

গুগল এডওয়ার্ড কি?

গুগল এডওয়ার্ড হ্যালো গুগল একটি পপুলার সার্ভিস গুগল অ্যান্ড্রয়েডের মাধ্যমে গুগোল বিভিন্ন প্রোডাক্ট কোম্পানি ওয়েবসাইট বা প্রতিষ্ঠানের কাছ থেকে তাদের প্রোডাক্ট এবং ওয়েবসাইটে প্রচার করার জন্য চুক্তি করে একটি নির্দিষ্ট পরিমাণের টাকা ফিক্সট করে দেয়।

গুগল এডসেন্সের মাধ্যমে বিভিন্ন ওয়েবসাইট ইউটিউব ভিডিওতে সেই বিজ্ঞাপন প্রচার টাকা ইনকাম করে থাকে গুগল এডসেন্স এর বিকল্প সাধারণত দুই প্রকার হয়ে থাকে। যেমন বিভিন্ন ধরনের ওয়েবসাইট কিংবা ইউটিউব ভিডিও গুলোতে ব্যানার প্রদর্শন করা অন্যটি হচ্ছে ইউটিউব ভিডিওতে টেলিভিশনের বিজ্ঞাপনের মত ভিডিও প্রদর্শন করিয়ে দেওয়া এখান থেকে গুগোল যত টাকা আয় করবে সেখান থেকে ব্লক ওয়েবসাইট ইউটিউব চ্যানেলের মালিক কে দেওয়া হয় 68শতাংশ। আর বাকি যে 32 শতাংশ থাকে সেটি গুগলের সার্ভিস খরচ হিসেবে রেখে দেয় বলা হয় এডোয়ার্ড এবং গুগল এডসেন্স দুটি মিলে একসাথে লিপ্ত হয়ে কাজ করে।

এডসেন্স থেকে আয় করতে কি কি লাগবে?

আপনার যদি এই গুগল এডসেন্স থেকে ইনকাম করতে চান তাহলে আপনাদের প্রশ্ন হতে পারে যে গুগল এডসেন্স থেকে আয় করতে কি কি লাগে? গুগল এডসেন্স থেকে আয় করতে চাইলে প্রথমত আপনার একটি ওয়েবসাইট বা ব্লগ থাকতে হবে এছাড়া একটি ইউটিউব চ্যানেল থাকতে হবে আপনি যদি ওয়েব ডিজাইনের কাজ করতে পারেন তবে ভাল আর যদি না জানেন তাহলে অন্য কাউকে দিয়ে একটি ওয়েবসাইট বা একটি ইউটিউব চ্যানেল তৈরি করে নিতে পারেন।

ওয়েবসাইট তৈরি করার পর একটি ডোমেইন এবং হোস্টিং নিয়ে সেটিকে অনলাইন করতে হবে তারপর ওয়েবসাইট স্পিড বাড়াতে হবে ওয়েবসাইটের উন্নতি করতে হবে প্রচুর আর্টিকেল পাবলিশ করতে হবে অন্য ওয়েবসাইটে আর্টিকেল চুরি করে কপিরাইট করা যাবে না মানুষের কাজে আসে এমন কিছু জনপ্রিয় আর্টিকেল পাবলিশ করতে হবে।

আপনার ওয়েবসাইটে সেই ওয়েবসাইট সম্পর্কে ত পেজ তৈরি করতে হবে ওয়েবসাইটে অন্য কারো অ্যাপ থাকলে সেটা ধরিয়ে দিতে হবে আপনার ওয়েবসাইটে যখন কিছু ভিজিটর প্রবেশ করবে তখন গুগল এডসেন্সের একটি একাউন্ট খোলার জন্য এপ্লাই করতে পারবেন।

আপনার ইমেইল আইডি থাকলে সহজেই তৈরি করতে পারবেন আর আপনি যদি ইউটিউব চ্যানেলের মাধ্যমে গুগল এডসেন্স থেকে ইনকাম করতে আগ্রহী থাকেন তবে আপনার একটি ইউটিউব চ্যানেল অবশ্যই থাকতে হবে প্রচুর শিক্ষনীয় অর্থাৎ মানুষের উপকার হয় এমন কিছু ভিডিও তৈরি করতে হবে তারপর সেই ভিডিওগুলো আপনার ইউটিউব চ্যানেল গুলোতে আপলোড করে দিতে হবে।

আপনার ইউটিউব চ্যানেলের যখন পর্যাপ্ত পরিমাণে সাবস্ক্রাইব এবং থাকবে তখন চ্যানেলটাকে গুগল এডসেন্স এর সাথে যুক্ত করতে পারবেন অনেকেই মনে করে যে গুগল এডসেন্স থেকে ইনকাম করা এবং গুগল এডসেন্স পাওয়া অনেক কঠিন কাজ। আপনার প্রশ্নের উত্তরে আমরা বলব পৃথিবীতে কোন কাজই কঠিন নয় চেষ্টা চালিয়ে যেতে হবে আপনি যদি গুগল এডসেন্স থেকে বিজ্ঞাপনের অনুমতি নিতে চান তাহলে আপনাকে অবশ্যই ধর্য্য ধরে ওয়েবসাইটে এবং ইউটিউব চ্যানেল গুলোতে কাজ করে যেতে হবে।

আপনার যখন গুগল এডসেন্সের শর্তগুলো সঠিকভাবে পালন করতে পারবেন তখনই আপনারা গুগল এডসেন্স পেয়ে যাবেন। আমরা আশা করি উত্তর আলোচনা জেনে আপনি বুঝতে পারছেন যে গুগল এডসেন্স থেকে আয় করার জন্য আপনাদের অবশ্যই একটি ব্লগ ওয়েবসাইট এবং ইউটিউব চ্যানেল থাকতে হবে।

ওয়েবসাইটে কতটি পোস্ট থাকলে এডসেন্স পাওয়া যাবে?

আমরা আপনাকে পরামর্শ দিচ্ছি আপনারা যদি আপনার ওয়েবসাইটে একদম ইউনিক ভাবে আর্টিকেল লিখতে পারেন তবে অল্প আর্টিকেল বা পোস্ট থাকলে আপনারা গুগল এডসেন্স পেয়ে যাবেন তবে সর্বনিম্ন ব্লক ওয়েবসাইটে ৩০ থেকে পঞ্চাশটি এর মত পোস্ট থাকতে হবে। আবার অনেক সময় দেখা যায় আপনার যদি ভালোভাবে কোয়ালিটি সম্পন্ন আর্টিকেল লিখতে পারেন তাহলে 10 থেকে 15 টি আর্টিকেল দিয়ে আপনারা গুগোল অ্যাডসেন্সে আবেদন করে এডসেন্স এর অনুমতি পেয়ে যাবেন।

আপনারা শুধুমাত্র খেয়াল রাখবেন লেখার শব্দ গুলো যাতে শুদ্ধ হয় কারণ এ লেখাগুলো ইংরেজি অনুবাদ হতে পারে অনুপাত হওয়ার পরে শব্দের ভুল থাকলে উল্টাপাল্টা রেজাল্ট চলে আসবে তখন এতে বিপরীত হয় স্বাভাবিক তাই আপনাকে অবশ্যই ভালোভাবে আর্টিকেল লেখার চেষ্টা করতে হবে।

আপনাদের প্রশ্ন হতে পারে যে একটি ওয়েবসাইটে যদি 30 থেকে 50 টি আর্টিকেল লেখা হয় সেখানে প্রতি আর্টিকেলে কতগুলো শব্দ থাকতে হবে। আমরা যেহেতু ওয়েবসাইট নিয়ে কাজ করি এবং গুগল এডসেন্স এর বিজ্ঞাপন দিয়ে টাকা ইনকাম করে তাহলে আপনারা আপনাদের পরামর্শ প্রদান করতে পারি যে আপনারা যদি গুগল এডসেন্স সাইটের মাধ্যমে টাকা ইনকাম করতে চান তাহলে প্রতি আর্টিকেলে আপনারা সর্বনিম্ন 500 থেকে 600 শব্দের কনটেন্ট তৈরি করবেন।

আবার অনেকে বলে থাকে যে কমপক্ষে 1000 শব্দ হতে হবে বা তার অধিক এক্ষেত্রে আমি বলব আর্টিকেল যখন লিখবেন তখন একটু সহজ করে লিখবেন যাতে করে আপনারা ছোট করেও আর্টিকেল লিখলে গুগল এডসেন্স এর শর্ত অনুযায়ী পূরণ হবে। আপনার আর্টিকেল লেখার টি যদি সহজ ও সুন্দরভাবে সাজানো গোছানো হয় তাহলে ভিজিটররা পড়তে অনেক আগ্রহী থাকবে এবং গুগল এডসেন্স বুঝতে পারবে যে আপনার ওয়েবসাইটের আর্টিকেলটি ভিজিটরদের কাছে অনেক পছন্দ।

কি বিষয় নিয়ে আর্টিকেল লিখবেন

আমার জানামতে লেখালেখি করার জন্য নির্দিষ্ট কোন বিষয় থাকে না আপনি যদি ব্লগে লিখেন তবে যেকোন বিষয় নিয়ে লিখতে পারেন আমাদের ওয়েবসাইটে আমরা বিভিন্ন ধরনের আর্টিকেল লিখে অনলাইনে ইনকাম বিষয়ে আর্টিকেল পাবলিশ করে থাকি শিক্ষা বিষয়ক বিভিন্ন ধরনের পোষ্ট পাবলিশ করে থাকি।

আগামীতে আমরা এই ব্লগে আরও বিভিন্ন বিষয় নিয়ে আর্টিকেল লেখার পরিকল্পনা করে যাচ্ছি লেখার ক্ষেত্রে আমি বলব কি ধরনের লেখা পড়তে চাই অথবা কি পড়লে পড়াটা তার কাজে আসবে সে বিষয়গুলো নিয়ে আপনি আপনার ব্লগ বা ওয়েবসাইটে আর্টিকেল লিখবেন।

এডসেন্সের জন্য কিভাবে এপ্লাই করব?

আপনি যদি গুগল এডসেন্স থেকে টাকা ইনকাম করতে চান তাহলে উপরের দেওয়া শর্ত গুলো সঠিক ভাবে আপনাকে পূরণ করতে হবে তারপর আপনারা গুগোল এডসেন্সে এপ্লাই করার যোগ্য হবেন।

আপনার যদি গুগল এডসেন্সের শর্তগুলো পূরণ করতে পারেন তাহলে গুগল এডসেন্স  এ লিংকে ক্লিক করে প্রবেশ করবেন তারপর আপনারা দেখতে পারবেন আপনার একটি ইমেইল একাউন্ট এবং পাসওয়ার্ড দিতে বলছে।

তারপর আপনার ইমেইল দিয়ে প্রবেশ করার পর আপনার ওয়েবসাইটের ইউআরএলটি সেখানে সাবমিট করে দিতে হবে তারপর সেখানে বিভিন্ন শিরোনাম দেওয়া আছে সেগুলো দেখে আপনারা সহজেই পূরণ করতে পারবেন পূরণ করার পর আপনাদের একটি গুগল এডসেন্স কোড দেয়া হবে সেই কোডটি কপি করে আপনার ওয়েবসাইটের এইচটিএমএল মুডে পেস্ট করে দিতে হবে হেড সেকশনে।

গুগোল অ্যাডসেন্সে আবেদন করা হয়ে গেলে তবে ৭-১৪ দিনের মধ্যে আপনাদের গুগোল অ্যাডসেন্সের টিম আপনাকে জবাব দেবে যদি সবকিছু ঠিক হয়ে থাকে তাহলে আপনাকে গুগোল অ্যাডসেন্সে অ্যাপ্রভাল ইন্ডিয়া দেয়া হবে আর যদি কোনো ত্রুটি থাকে তাহলে আপনাকে জানিয়ে দেয়া হবে যে এই সমস্যাগুলি আপনি এখন ঐ সমাধান করে আবারও আবেদন করুন।

আপনার ওয়েবসাইটের সবকিছু যদি ঠিকঠাক থাকে তাহলে আপনারা অল্প সময়ের মধ্যেই গুগোল অ্যাডসেন্সে অ্যাপ্রভাল পেয়ে যাবেন তারপর আপনাদের ওয়েবসাইটে ইউটিউব চ্যানেলে বিজ্ঞাপন প্রদর্শন করে টাকা ইনকাম করা শুরু করতে পারবেন আপনারা যে পরিমাণের টাকা ইনকাম করবেন সেগুলো আপনার গুগল এডসেন্স একাউন্টে জমা হবে।

গুগল এডসেন্স থেকে কিভাবে টাকা পাব? 

আপনারা ওয়েবসাইট বা ইউটিউব চ্যানেল তৈরি করার পর গুগোল এডসেন্সে এপ্লাই করে যদি গুগল অ্যাডসেন্স অ্যাপ্রুভাল পেয়ে যান তাহলে আপনাদের টাকা ইনকাম করা শুরু হবে।

আপনাদের প্রশ্ন হতে পারে যে গুগল এডসেন্স থেকে আপনারা যে পরিমাণ টাকা ইনকাম করবেন সে টাকা দিয়ে আপনারা কিভাবে পাবেন। এ বিষয় নিয়ে আপনার কোনো চিন্তা নেই আপনি গুগল এডসেন্সের মাধ্যমে যে পরিমাণ টাকা ইনকাম করতে পারবেন সেগুলো গুগল এডসেন্স এর একাউন্টে জমা হবে যখন আপনাদের গুগল এডসেন্স একাউন্টে 100 ডলার * হবে তখনই আপনারা আপনার নিজস্ব ব্যাংক একাউন্টের মাধ্যমে টাকা উত্তোলন করে নিতে পারবেন।

এবং গুগোল অ্যাডসেন্সে যখনআপনাদের 100 ডলার পূরণ হবে তখন তারা প্রতিমাসে 21 তারিখে আপনার পেমেন্ট সেন্ড করে দেবে। আপনি হয়তো 21 তারিখের মধ্যে টাকা নিজের একাউন্টে নাও পেতে পারেন এটি কিছুদিন সময় লাগে তবে 21 তারিখ থেকে শুরু করে আপনি 28 তারিখের মধ্যে গুগল এডসেন্সের পেরন করা টাকা আপনার ব্যাংক একাউন্টে গ্রহণ করতে পারবেন।

আশা করি আপনারা বুঝতে পারছেন যে গুগল এডসেন্স থেকে কিভাবে টাকা পাবেন।

শেষ কথাঃ

তো বন্ধুরা আমাদের আর্টিকেলে আলোচনা করা হল গুগল এডসেন্স থেকে টাকা আয় করার সহজ উপায়। আপনি যদি আমাদের আর্টিকেলটি শুরু থেকে শেষ পর্যন্ত অনুসরণ করে থাকেন তবে আপনিও গুগল এডসেন্স থেকে টাকা আয় করার উপায় গুলো জেনে নিতে পেরেছেন যদি আমাদের দেওয়া তথ্য অনুযায়ী আপনি কাজ করতে পারেন তাহলে গুগল থেকে নিজের ঘরে বসে প্রতি মাসে লক্ষ লক্ষ টাকা ইনকাম করে নিতে পারবেন।

গুগল এডসেন্স থেকে টাকা আয় গুগল এডসেন্স থেকে টাকা আয় গুগল এডসেন্স থেকে টাকা আয় গুগল এডসেন্স থেকে টাকা আয় গুগল এডসেন্স থেকে টাকা আয় গুগল এডসেন্স থেকে টাকা আয় গুগল এডসেন্স থেকে টাকা আয় গুগল এডসেন্স থেকে টাকা আয়

আমাদের আর্টিকেলটি যদি আপনাদের কাছে ভাল লেগে থাকে তবে এটি আপনার বন্ধুদের সাথে অবশ্যই শেয়ার করে দিবেন তাদেরকেও অনলাইনের মাধ্যমে টাকা ইনকাম করার সুযোগ দিন। আমাদের সাথে থাকার জন্য আপনাকে অসংখ্য ধন্যবাদ।

You May Like

Leave a Comment